সুনামগঞ্জে আপন ২ ভাইসহ ৭ ইউনিয়নে ৪৮ চেয়ারম্যান প্রার্থীর প্রচারনা জমজমাট

responsive

মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া- সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার এক ইউনিয়নে আপন ২ ভাইসহ ৭ ইউনিয়নে এবার লড়াই করবেন মোট ৪৮জন চেয়ারম্যান প্রার্থী। আগামী ৭ ফেব্রæয়ারী অনুষ্ঠিত হবে শেষ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। তাই মানোনয়নপত্র দাখিল করেই চারদিক চষে বেড়াচ্ছে প্রার্থীরা। তারা সভা-সমাবেশ করে ভোটারদের দিচ্ছেন নানান আশ^াসের বানী। কারণ জেলার খনিজ ও প্রাকৃতিক সম্পদে ভরপর উপজেলা হচ্ছে তাহিরপুর। তাই এখানকার রাজনীতি একটু আলাদা। এজন্য এউপজেলার স্থানীয় হাট-বাজারের বনিক সমিতি, ইউনিয়ন পরিষদ ও সংসদ নির্বাচন আসার আগে থেকেই বিভিন্ন পদপ্রার্থীদের মাঝে শুরু হয় বিরাট প্রতিযোগীতা। বিভিন্ন দলের একাধিক প্রার্থীরা নিজেদেরকে জয়ী করার জন্য হয়ে উঠে মরিয়া। আজ রবিবার (১৬ জানুয়ারী) সকাল ১১টায় নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে- জেলার তাহিরপুর উপজেলার ভারত সীমান্ত ঘেষা উত্তর বড়দল ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে লড়াই করার সিদ্ধান্ত নিয়ে মাঠে নেমেছেন আপন দুই ভাই। তারা হলেন- উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল কাসেম এবং তার আপন ছোট ভাই উত্তর বড়দল ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন। দলীয় ভাবে বিএনপির পক্ষ থেকে কোন প্রার্থী বাচাই না করলেও তারা দুই ভাই লড়বেন স্বতন্ত্রপ্রার্থী হয়ে। তাদেরকে পরাজিত করে হারানো অবস্থান উদ্ধার করার জন্য আওয়ামীলীগের দলীয় প্রার্থী হিসেবে লড়াই করবেন সাবেক চেয়ারম্যান ও স্থানীয় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি জামাল উদ্দিন। এছাড়াও এই ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন ওই ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি মোঃ মাসুক মিয়া ও স্বতন্ত্রপ্রার্থী শাহাব উদ্দিনসহ লড়বেন মোট ৯জন প্রার্থী। তাদের মধ্যে আলোচনার শীর্ষে রয়েছে আপন দুই ভাই। অন্যদিকে এউপজেলার বালি-পাথর ও কয়লা সমৃদ্ধ সীমান্ত নদী যাদুকাটার ইউনিয়ন বাদাঘাটে আওয়ামীলীগের দলীয় প্রার্থী হয়েছেন ওই ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক মোঃ সুজাত মিয়া। কিন্তু তাকে ঠেকাতে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা নিজাম উদ্দিন, তার আপন ফুফাতো ভাই বোরহান উদ্দিন, চাচাতো ভাই সোহাগ মিয়া, গোলাম রব্বানী ও বর্তমান চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিনসহ বাংলাদেশ ইসলামী আন্দোলনের দলীয় প্রার্থী এম সালমান আহমদসহ মোট ৮জন। এদিকে কয়লা ও চুনাপাথর আমদানীর ৩টি শুল্ক স্টেশন নিয়ে গঠিত উপজেলার সবচেয়ে আলোচিত ও সমালোচিত উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের প্রার্থী হয়ে এবার লড়াই করবেন জেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি ও কয়লা- চুনাপাথর ব্যবসায়ী আবুল খায়ের। তাকে ঠেকাতে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ¦ আবুল হোসেন খাসহ মোট ৭জন। এছাড়া হাওর নিয়ে গঠিত যোগাযোগ বঞ্চিত দক্ষিণ বড়দল ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের প্রার্থী হয়েছেন লড়াই করবেন দক্ষিণ বড়দল ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম। তাকে ঠেকাতে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা আওয়ামীলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক হাজী ইউনুছ আলী, সাবেক চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ ও বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ সবুজ আলমসহ মোট ৭জন। উপজেলার দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে লড়াই করবেন যুবলীগ নেতা ও বর্তমান চেয়ারম্যান বিশ^জিত সরকার। তার সাথে লড়বেন বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আলী আহমদ মুরাদ ও এডভোকেট মহসিন রেজা মানিকসহ মোট ৯জন। এদিকে উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের মধ্যে সবচেয়ে কম প্রার্থী লড়াই করছেন বালিজুরী ইউনিয়ন পরিষদে। এই ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের প্রার্থী হয়েছেন সাবেক চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আতাউর রহমান। তাকে ঠেকাতে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন বাংলাদেশ স্থলবন্দর শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক আজাদ মিয়া। এছাড়া তাহিরপুর সদর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছেন সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য মোতাহার হোসেন আখঞ্জি শামীম। তার সাথে লড়াই করবেন বর্তমান চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোঃ জুনাব আলীসহ মোট ৬জন প্রার্থী। এব্যাপারে রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্বপ্রাপ্ত উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হাসান উদ-দৌলা সাংবাদিকদের বলেন- তাহিরপুর উপজেলার একই ইউনিয়নে আপন ২ভাইসহ ৭টি ইউনিয়নে মোট ৪৮জন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। মনে হচ্ছে কেউ কাউকে ছাড় দিতে নারাজ। এখন ভোটাররা তাদের মূল্যবান ভোট দিয়ে কার কার গলায় বিজয়ের মালা তুলে দেয় তা দেখার পালা।

responsive

মন্তব্যসমূহ (০)


ব্রেকিং নিউজ

লগইন করুন


Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন