সাপাহার উপজেলার আইহাই উচ্চ বিদ্যালয়ে উৎসবের আমেজ,স্ব-শরীরে ক্লাসে শিক্ষার্থীরা

responsive

হাফিজুল হক, সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধি :- মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে দীর্ঘ দেড় বছর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার পর রবিবার (১২ সেপ্টেম্বর) সারাদেশের ন্যায় নওগাঁর সাপাহার উপজেলার সব স্কুল-কলেজ খুলে দেয়া হয়েছে।

এরই ধারাবাহিকতায় গত মঙ্গলবার উপজেলার আইহাই উচ্চ বিদ্যালয়ে সরেজমিনে দেখা গেছে  শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে শিক্ষার্থীদের মাঝে ছিলো উৎসবের আমেজ। স্কুল ড্রেস গায়ে দিয়ে কাঁধে বই-খাতার ব্যাগ ঝুলিয়ে সারি সারি শিক্ষার্থীরা আবারো ফিরেছে তাদের প্রিয় ক্যাম্পাসে।

শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে প্রিয় শিক্ষাপ্রাঙ্গন। প্রিয় ক্যাম্পাসে ফিরতে পেরে খুশি শিক্ষার্থীরা। প্রিয় শিক্ষক, বন্ধু-সহপাঠীদের পেয়ে কিছুতেই থামছে না আনন্দের উচ্ছাস। অনেক শিক্ষার্থী   প্রথম দিন থেকে অদ্যবতী যেমন খুশি তেমন বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেছে।

 

বিদ্যালয়ের প্রতিটি ক্লাসরুমে পরিদর্শন পূর্বক দেখা গেছে শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি এবং সরকারি নির্দেশনা মেনে ক্লাস চলেছে। বিদ্যালয়ের ক্লাসরুমে ও বিদ্যাপীঠে লাগানো হয়েছে নির্দেশনা ব্যানার। সকল প্রকার স্বাস্থ্যবিধির যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে এবং বিদ্যালয়ের পরিষ্কার পরিছন্নতা শতভাগ নিশ্চিত ছিল।

 

উল্লেখ্য, দেশে করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে গত বছরের  ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয়। এসময় শ্রেণিকক্ষে পাঠদান বন্ধ থাকলেও অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম  চালু করা ছিলো।

 

সুনামধন্য বিদ্যাপীঠ এর ১০ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী বলেন, দীর্ঘদিন পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ায় আমরা খুবই আনন্দিত। আমাদের খুবই ভালো লাগছে।

 

উক্ত বিদ্যালয়ের সহকারি প্রধান শিক্ষক জিয়াউজ্জামান টিটু বলেন, দীর্ঘ দিন বন্ধের পর শিক্ষার্থীদের পদচারণায় আজ মুখরিত হলো বিদ্যালয় প্রাঙ্গন। একারনে শিক্ষার্থীদের আমরা ফুল দিয়ে বরণ করে নিয়েছি। সরকারি নির্দেশনার আলোকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পাঠদান কার্যক্রম পরিচালনার পাশাপাশি সব সময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার কথাও জানান তিনি।

 

উক্ত বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছালেকুর রহমান জানিয়েছেন, শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সচেতনতা ডিজিটাল ব্যানার স্থাপন করা হয়েছে ক্লাশরুমে। শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি রক্ষায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রয়োজনীয় উপকরণও রাখা হয়েছে। অনেকদিন পর শিক্ষক, শিক্ষার্থীর আগমনে আনন্দে পরিপূর্ণ মনে হয়েছে শিক্ষাঙ্গন।

 

ইতিপূর্বে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার শামসুল কবির জানান, মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোতে সরকারি নির্দেশনার আলোকে পাঠদান কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। বিদ্যালয়গুলোতে স্বাস্থ্যবিধি সহ নির্দেশনাগুলো মানছে কিনা তা মনিটরিং করা হচ্ছে।

স্কুল কলেজ খোলার পর থেকেই সাপাহার উপজেলা নির্বাহি অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করেছেন বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন এবং সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সরকারি বিধি নিষেধ অনুযায়ী সকল প্রকার শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

responsive

মন্তব্যসমূহ (০)


ব্রেকিং নিউজ

লগইন করুন


Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন